শনিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি.
SKF Company

বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ উপলক্ষে মহামায়া মন্দিরে বৈশাখী উৎসব পালন।

২০-এপ্রি-২০২১ | Dhaka Desk | 251 views

নিউইয়র্ক প্রতিনিধিঃ জ্যামাইকাস্থ মহামায়া মন্দিরে গত ১৭ই এপ্রিল, শনিবার বিভিন্ন আকর্ষনীয় অনুষ্ঠান ও বিপূলসংখ্যক দর্শক শ্রোতার উপস্থিতিতে দিনব্যাপী উৎযাপিত হলো বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ উৎসব। করোনার বিষয়ে সতর্কতা থাকলেও এতে আনন্দের কোন প্রকার কমতি ছিল না। দুপুরের মহাভোগ শেষে ভক্তরা একে একে অপূর্ব বৈশাখী স্বাজে মন্দির প্রাংগনে আসতে থাকে এবং একসময় সেটা ব্যাপকতা ধারন করে।

প্রারম্ভেই পায়েল সাহা গীতাপাঠ ও সংগঠনের প্রেসিডন্ট শ্রী রজ্ঞিত সাহা এবং জেনারেল সেক্রেটারী গোবিন্দ দাস এর শুভেচছা বক্তব্য রাখেন। সাংস্কৃতিক পর্ব শুরু হয় বিশিষ্ট যন্ত্র সংগীত গান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান “পন্ডিত কিষান চন্দ্র মহারাজ তাল-তরঙ্গ ইনক্ এর পরিবেশনা দিয়ে ।সেটা ছিল সত্যিই আকর্ষনীয় ও উপভোগীয় অনুষ্ঠান। এতে অংশগ্রহন করেন স্কুলের সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী বৃন্দ।পরিচালনা করেন- স্কুল এর সত্বাধীকারী শ্রী তপন মোদক।

বিনোদনমূলক মাগাজিন অনুষ্ঠান – গান ,নৃত, অভিনয়, কৌতুক দিয়ে সাজানো “বৈশাখী আনন্দে” উপস্থিত দর্শকবৃন্দ প্রান খুলে আনন্দ উপভোগ করেন। এতে অংশগ্রহন করেন- তমা চক্রবর্তী, বিকাশ বালা, সহদ তালুকদার, রামদাস ঘরামী, প্রদীপ ভট্টাচার্য, বাসন্তী দাস, প্রমিতা চক্রবর্তী, মেঘ দাস, শ্রেয়া চক্রবর্তী । উপস্থাপনা ও পরিচালনায় ছিলেন- গোবিন্দ দাস।

পরপরই শুরু হয় সবচাইতে আকর্ষনয়ীয় ছোটদের পরিবেশনায় দমফাটানো হাসির নাটিকা “জলের খোঁজে” এতে বিভিন্ন চরিত্রে রুপদান করেন- পূজা, ঈশান, প্রমিত, গ্লোরিয়া, পায়েল, জেসিকা ও প্রীয়ন্তি। পরিচালনা করেন-গোবিন্দ দাস। বিশ্বজিৎ সাহার তত্তাবধানে ও তমা চক্রবর্তীর উপস্থাপনায় গানের অনুষ্ঠান “সুরের লহরী”তে প্রথমে ক্ষুদে শিল্পী প্রীতিষা, ইমন, ঈশান এবং পরে গান পরিবেশন করে আসর কাঁপান- তমা চক্রবর্তী, মৌসুমী চক্রবর্তী, টুম্পা সাহা, প্রান্জলী দাস, বিশ্বজিত সাহা, সবিতা, নিভা দত্ত, প্রদীপ্তা পোদ্দার, ত্রিনয়নি তালুকদার, মৌমিতা সাহা, শিউলী কুন্ডু, প্রদীপ ভট্টাচার্য, প্রমূখ।

মনজ্ঞ নৃত্য পরিবেশন করেন- প্রীতু সাহা, প্রীয়ন্তী পাল, জেসিকা বানিয়া, অদ্বিতা, কংকীতা। শেষে বাংলাদেশের ক্লোজআপ খ্যাত জনপ্রীয় সংগীত শিল্পী রাজীব ব্যানার্জি মনমাতানো গান গেয়ে আসর মাতিয়ে দর্শকদের মন জয় করে নেন। অনুষ্ঠান চলে মধ্যরাত পর্যন্ত । এই অনুষ্ঠানটিকে সুন্দর ও সার্থক করে তুলতে যাদের অবদান সবচাইতে বেশী, তারা হলেন- জয়ন্তী ভট্টাচার্য (সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা) নির্মল পাল, গোপাল সাহা, প্রনব চক্রবর্তী, অমর দাস, রন্জিত দেব, গোবিন্দ জী বানিয়া, শম্ভু নাথ সাহা, রাজেন সাহা, রামদাস ঘরামী, সহদেব তালুকদার, মিন্টু নাথ,বিকাশ বালা, মধুসূদন দত্ত, গৌতম সরকার, বিধান চন্দ্র পাল, স্বপন চক্রবর্তী, প্রদীপ ভট্টাচার্য বিশ্বজিত সাহা সহ আরও অনেকে।

Spread the love

সার্চ/অনুসন্ধান করুন

USA JOBS LINKS